বাচ্চু ভাই আমাকে গান গাওয়ার সুযোগ করে দেন : নোবেল

বাচ্চু ভাই আমাকে গান গাওয়ার সুযোগ করে দেন : নোবেল

জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেতা আদিল হোসেন নোবেল জনপ্রিয় ব্যান্ডসঙ্গীত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন। এ খ্যাতিমান সঙ্গীতশিল্পীর সঙ্গে নোবেলের ছিল নিবিড় যোগাযোগ। আজকের এ দিনে তাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন জনপ্রিয় এ মডেল। পাশাপাশি নতুন কাজের পরিকল্পনা নিয়েও কথা বলেছেন

প্রশ্ন: আইয়ুব বাচ্চুর গান এবং তার সঙ্গে সখ্য কীভাবে তৈরি হয়?

নোবেল: আমি ছোটবেলা থেকেই গানপ্রিয়। বাচ্চু ভাইয়ের গানে আমি প্রভাবিত ছিলাম। এভাবেই তার প্রতি আমার অনুরাগ তৈরি হয়।

প্রশ্ন: তার কোন গানগুলো বেশি ভালো লাগত?

নোবেল: বাচ্চু ভাইয়ের প্রায় সব গানই আমার পছন্দ। তার ‘ঘুমন্ত শহরে’, ‘রুপালী গিটার’ গান দুটি বেশি পছন্দের। বিশেষ করে ‘একদিন ঘুম ভাঙা শহরে’ গানটি আমাকে এখনও টানে।

প্রশ্ন: কেন এই গানটি আপনার বিশেষ পছন্দের?

নোবেল: প্রথম যখন এ গানটি শুনি, তখন আমি বিমোহিত হয়ে যাই। অবাক হয়ে ভাবি, এটা বাংলাদেশি কোনো মিউজিশিয়ানের তৈরি! তবে একটি কষ্ট আছে। ইচ্ছা ছিল বাচ্চু ভাইয়ের সামনে এ গানটি গাওয়ার। কিন্তু সে সুযোগ আর হয়নি।

প্রশ্ন: আইয়ুব বাচ্চুর সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্ক কেমন ছিল আপনার?

নোবেল: আমি অনেক বিজ্ঞাপনে জিঙ্গেলের মিউজিক বাচ্চু ভাইকে দিয়ে করিয়েছি। ২০০০ সালের দিকে একটি অনুষ্ঠানে বাচ্চু ভাই আমাকে গান গাওয়ার সুযোগ তৈরি করে দেন। এই প্রস্তাব পেয়ে আমি অবাক হই। এলআরবির সঙ্গে স্টেজে গান গাওয়ার সেই সুযোগ আমার জীবনের উল্লেখযোগ্য একটি ঘটনা।

প্রশ্ন: বাচ্চুর গান নিয়ে কাজ করার কোনো পরিকল্পনা আছে?

নোবেল: তার কয়েকটি গান রিমেক করে তৈরি করার ইচ্ছা আছে। যেগুলো ভিডিও তৈরি করে অনলাইনে প্রকাশ করার পরিকল্পনা আছে। সেই গানগুলোতে কণ্ঠও দেব আমি। এছাড়া ভিডিওতে মডেল হিসেবে আমিই কাজ করব।

প্রশ্ন: নাটকেও তো আপনি মাঝে মধ্যে অভিনয় করেন। কেমন সাড়া পান এ নিয়ে?

নোবেল: ভালো সাড়া পাই। দর্শক অভিনয়ের জন্য আমাকে দারুণভাবে উৎসাহিত করেন। ভালো গল্প ও নির্মাতা হলে অভিনয়ে আপত্তি নেই।

প্রশ্ন: নতুন কোনো বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন কি?

নোবেল: কাজ করেছি। বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন এটি। বর্তমানে এটির সম্পাদনার কাজ চলছে। শিগগিরই এটি প্রচার হবে।

ফেসবুকের মাধ্যমে কমেন্টস করুনঃ

কমেন্টস